মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ

 

মো. গোলাম কিবরিয়া মিয়াজিকে নিয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন গনমাধ্যমে প্রকাশিত শিরোনামে শরীয়তপুরের চরকাশিম, চরওয়েষ্টার, বাহেরচর ও চাঁদপুরের নাছিরাকান্দি মৌজায় অনাবাদি

জমির আবর্জনা পরিস্কারপূর্বক বৈধ উপায়ে মাটি কাটার বিষয়টিকে ভুলভাবে উপস্থাপন করে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশের পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ব্যবসায়ী ও আহবায়ক মুজিবসেনা ঐক্য পরিষদ লীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর মো. গোলাম কিবরিয়া মিয়াজি । সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, শরীয়তপুরের চরকাশিম, চরওয়েষ্টার, বাহেরচর ও চাঁদপুরের নাছিরাকান্দি মৌজায় অনাবাদি জমির আবর্জনা পরিস্কারপূর্বক বৈধ উপায়ে মাটি কাটার বিষয়টিকে ভুলভাবে উপস্থাপন করে প্রকাশিত হয়েছে

তিনি বরং অবাক হচ্ছেন, কী করে যাচাই বাছাই না করে দেশের কয়েকটি গণমাধ্যম এই খবর প্রচার করে দিলো! এ বিষয় গোলাম কিবরীয়া মিয়াজী বলেন , যখন আমাদের দেশের নানা ওয়েবসাইট যা ইচ্ছা তাই লিখে দেয়, তখন দুঃখ লাগে বটে!’অতিউৎসাহী ও মন্তব্যধর্মী যা এথিকস অব জার্নালিজম-এর মধ্যে পড়ে না। জমির মালিকানা দাবি করে যাদের
নাম সংবাদে ছাপা হয়েছে- আমজাদ বেপারি, নুর ইসলাম, মোর্শেদ আলম এখানে তাদের জমির মালিকানা নেই। জমির প্রকৃত মালিক হান্নান খালাশী, গোলাম হোসেন খালাশী, আক্তার খালাশী, বাচ্চু মেম্বার, মোতাহার হোসেন, মোহাম্মদ বেপারি, আরফান বেপারী, মোফাজ্জল বেপারী, আ. মালেক প্রধান, সিরাজ মিয়া গং।

তাদের থেকে জমিগুলো আমি ক্রয় করে বৈধ উপায়ে বিক্রি করছি, যা সর্বজনসম্মত। এছাড়াও স্থানীয় বিএনপি নেতা গোলাম মর্তুজা তার ৫০ একর জমিতে মাটি কাটার যে দাবি করেছেন তাও সত্য নয়। তার জমি বহাল তবিয়তে রয়েছে। তিনি নিজেই ব্যক্তিগত সুবিধা নেয়ার জন্য ভুল ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভিন্ন অফিস-দপ্তরে এবং সাংবাদিকদের কাছে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

প্রকৃতপক্ষে, নদী সংলগ্ন অনাবাদি চরের পরিত্যক্ত জমি থেকে দেশের চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার স্বার্থে ইটভাটায় মাটি কেটে সরবরাহ করা হচ্ছে। চরে জেগে উঠা অনাবাদি মাটি কাটা কোন অবৈধ কাজ নয়। কিন্তু কতিপয় সাংবাদিকগণ সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে যাচাই-বাছাই ছাড়াই উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আমার নামে কুৎসা ও মিথ্যা অপবাদ জড়িয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছেন। সাংবাদিকতার নীতি-নৈতিকতার ন্যূনতম চর্চা নাহয় করলেন না, অন্তত নিজেদের এতটা সস্তা হিসেবে তুলে ধরতেও তো বিবেকে নাড়া দেওয়া উচিত!’

এর মধ্যে কেউ কেউ আমার কাছে চাঁদাও দাবি করেছেন। কিন্তু আমি বৈধ ব্যবসায়ী বলে তাদের চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে একপেশে সংবাদ প্রকাশ করেছেন। এই ধরনের সংবাদ দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী আমার মানহানির শামিল। আমি প্রকাশিত সংবাদগুলোর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাই।

 

 

16
6
3
5

Posts

প্রধান পৃষ্ঠপোষক: আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ্ (এমপি),মাননীয় সংদ সদস্য ঢাকা ১৬,
প্রধান উপদেষ্ঠা: সাইদুর রহমান রিমন, সিনিয়র ক্রাইম রিপোর্টার, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন
চেয়ারম্যান ও প্রকাশক: মোঃ মাসুদ রানা (জিয়া), সহকারি সম্পাদক, দৈনিক অগ্নিশিখা,
সম্পাদক: শাহাজাদা শামস ইবনে শফিক
সহ-সম্পাদক: মোঃশরিফুল ইসলাম (রবিন)

সম্পাদকীয় কার্যালয়
১২০/এ মতিঝিল বা/এ, ৪থ তলা, সুইট-৪০২, ঢাকা- ১০০০
বার্তা কক্ষ : ০১৬৪২০৭৮১৬৪
বিজ্ঞাপনের জন্য : ০১৬৮৬৫৭১৩৩৭
Gmail:banglarrazpratidin@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Developed by banglarraz24.com © 2022
x

Contact Us